পেকুয়ায় প্রবাসীর স্থাপনা ভাংচুর, কলেজ ছাত্রীসহ আহত-২ – aponbangla.com
বুধবার, ০৭ জুন ২০২৩, ০১:৫৯ অপরাহ্ন
Title :
নাইক্ষ্যংছড়ি ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো কোম্পানির উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ ডুলাহাজারায় সীমানা বিরোধে হামলায় নারীসহ আহত- ৪ বানৌজা শেখ হাসিনা ঘাঁটিতে জাতীয় বৃক্ষরোপন অনুষ্ঠান উদ্বোধন করলেন নৌবাহিনীর প্রধান এডমিরাল এম শাহীন ইকবাল নাইক্ষ্যংছড়িতে বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শুভ উদ্বোধন চকরিয়া সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় রোগীর মৃত্যু পেকুয়ায় আগুন দিয়ে পুঁড়াল ফার্মেসী চকরিয়ার ফাঁসিয়াখালীতে শ্রমিক লীগের কমিটি গঠন চকরিয়ায় ব্যবসায়ী’কে হামলা দোকান লুটপাট রক্ষা পায়নি স্কুল ছাত্রও ঠাকুরের দোহাই দিয়ে স্বর্ণালঙ্কারসহ আড়াই লাখ টাকা হাতিয়ে নিলো প্রতারক চক্র চিংড়ি ঘের নিয়ে উত্তেজনা:পেকুয়ায় কোর্টে গেলেন সাবেক স্বারস্ট্রমন্ত্রীর চাষা

পেকুয়ায় প্রবাসীর স্থাপনা ভাংচুর, কলেজ ছাত্রীসহ আহত-২

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৫ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১৬৬ Time View

পেকুয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের পেকুয়ায় হামলায় কলেজ ছাত্রীসহ ২ জন আহত হয়েছে। এ সময় সৌদি প্রবাসীর বসতভিটায় নির্মিত স্থাপনাও ভাংচুর করা হয়েছে। ১২ জানুয়ারী (বৃহস্পতিবার) দুপুর ১২ টার দিকে উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের নাজিরবাড়ি নামক স্থানে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আহতরা হলেন-ওই এলাকার রুহুল আমিনের স্ত্রী তাহুরা বেগম (৫৫), ও মেয়ে পেকুয়া বিএমআই কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্রী তাসফিয়া বেগম (১৬)।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বসতভিটার জায়গা ও সীমানা নিয়ে বারবাকিয়া ইউনিয়নের নাজিরবাড়িতে সৌদি প্রবাসী মো: আজমগীরের স্ত্রী সোলতানা রাজিয়া রেবেকা ও প্রতিবেশ প্রবাসী বেলাল উদ্দিনের স্ত্রী রাশেদা বেগম গংদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। ২০১৫ সালের ২৩ ডিসেম্বর রেবেকার স্বামী আজমগীর ৮শতক জায়গা খরিদ করেন। যার দলিল নং ২৪৩৯। আনোয়ার হোসেনের ছেলে রমিজ উদ্দিন ওই জায়গা আজমগীরকে রেজিষ্ট্রি প্রদান করেন। অপরদিকে খরিদা ৮শতকসহ আজমগীরের পৈত্রিক অংশ থেকে সেখানে জায়গা প্রাপ্ত হন। জায়গাটি আজমগীরের ভোগ দখলে রয়েছে। সম্প্রতি ওই জায়গা নিয়ে বিরোধের সুত্রপাত হয়। ঘটনার দিন দুপুরে একদল দুবৃর্ত্তরা প্রবাসী আজমগীরের জায়গায় হানা দেয়। এ সময় তারা সেখানে ঘিরা বেড়াসহ স্থাপনা ভাংচুর করে। এতে করে আজমগীরের স্ত্রীসহ স্বজনরা এর প্রতিবাদ করে। এর জের ধরে প্রতিপক্ষ বেলাল উদ্দিনের পক্ষে তার ভাই হেলালসহ কয়েকজন মিলে আজমগীরের বড় বোন তাহুরা বেগম ও ভাগিনী তাসফিয়া বেগমকে পিটিয়ে আহত করে। জায়গা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে দেওয়ানী অনিষ্পত্তিসহ ফৌজধারী ননজিআর অভিযোগও রয়েছে। কাগজপত্র ও জায়গার তথ্যাদি পর্যালোচনায় দেখা গেছে এ সংক্রান্ত ননজিআর মামলা বিচারাধীন ছিল। ১৫৬/২২ স্মারকের একটি সরেজমিন প্রতিবেদন আদালতে পাঠানো হয়েছে। ওই অভিযোগের বাদী ছিলেন রেবেকা বেগমের প্রতিপক্ষ অপর সৌদি প্রবাসী বেলাল উদ্দিনের স্ত্রী রাশেদা বেগম। বারবাকিয়া ইউপির চেয়ারম্যান এ,এইচ,এম বদিউল আলম প্রতিবেদনটি প্রেরণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ছিলেন। তিনি সরেজমিন পরিমাপসহ জায়গাটির স্থিতি ও চৌহর্দ্দি নির্ণয় করেন। প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেছেন, বাদীর আনীত অভিযোগ সত্য নই। পরিমাপে রেবেকা বেগমের স্বামী আজমগীরের খরিদস্বত্ত ৮ শতক ও পৈত্রিক অংশসহ মোট দখলীয় জায়গার মধ্যে ৮৬পয়েন্ট জায়গা কমতি রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। মোস্তাক আহমদের স্ত্রী আমেনা বেগম বলেন, এখানে রেবেকা বেগমদের হয়রানি করা হচ্ছে। তারা অত্যন্ত শান্ত প্রকৃতির লোকজন। ঘিরা বেড়া দিলে বেলাল উদ্দিনের পক্ষের লোকজন ভাংচুর করে। আরসিসি পিলার ও কাঁটাতারের ঘেরায় তান্ডব চালানো হয়। ব্যাংক কর্মকর্তা খিজিরুল ইসলামের স্ত্রী রাবেয়া নাসরিন বলেন, খুবই অন্যায় চলছে আমাদের উপর। কলেজ ছাত্রী তাসফিয়া বেগম বলেন, আমাকে ও আমার মাকে মারধর করা হয়েছে। আমরা হাসপাতালে ভর্তি ছিলাম।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2022
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com