মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১২:২৪ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞাপন

পেকুয়ায় ভাড়াটে নিয়ে কৃষকলীগ সভাপতির দোকান গুড়িয়ে দিল বিএনপি নেতা

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২২
  • ১৫১ Time View

পেকুয়া প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের পেকুয়ায় কৃষকলীগ সাবেক সভাপতি হাজী মেহের আলীর দোকান ঘর গুড়িয়ে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিএনপির প্রভাবশালী নেতা ও চিহ্নিত ভূমিদস্যু রিদুওয়ানুল হক প্রকাশ রিদুওয়ান মাষ্টারের নেতৃত্বে ২০/৩০ জনের ভাড়াটে দুবৃর্ত্তরা ভীতি ও আতংক ছড়িয়ে দিন দুপুরে কৃষকলীগ পেকুয়া উপজেলা শাখার সাবেক সভাপতি হাজী মেহের আলীর দোকান ঘরে হানা দেয়। ১৪ অক্টোবর (শুক্রবার) সকাল ৮ টার দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের কবির আহমদ চৌধুরী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় রিদুওয়ানুল হকের ভাড়াটে লোকজন মেহের আলীর দোকান ঘরটি গুড়িয়ে দেয়। টিনের ছালার দোকান ঘরটির ছালা খুলে ফেলে। এরপর দোকানটির নকশা ও ডিজাইন পরিবর্তন করা হয়। ছালের টিনগুলি উপড়ে ফেলে জায়গাটিতে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করা হয়। বনৌজা শেখ হাসিনা সড়কের পাশে জায়গাটিতে টিনের ঘেরা দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করা হয়। খবর পেয়ে পেকুয়া থানা পুলিশ ওই স্থান পরিদর্শন করেছেন। জায়গাটির অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সিনিয়র সহকারী জজ আদালত, কক্সবাজারে চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার জন্য মামলা রয়েছে। মামলা ও নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি অমান্য ও বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে জোট সরকারের সময় প্রচন্ড ক্ষমতাধর ব্যক্তি ও বিএনপির পেকুয়ার নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের এ জৈষ্ট্য নেতার নেতৃত্বে এ কান্ড সংঘটিত হয়েছে। এ দিকে ক্ষমতাসীন দল আ’লীগের ভাতৃপ্রতীম সংগঠন কৃষকলীগ পেকুয়ার সাবেক সভাপতি হাজী মেহের আলীর দোকান ঘর গুড়িয়ে দেয়ার এ খবর পেকুয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। ওই পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে পেকুয়ায় ক্ষমতাসীন দল আ’লীগের তৃণমূল পর্যায়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। দলটির শত শত নেতা-কর্মীসহ পেকুয়ার সচেতন মানুষ ওই কান্ডের তীব্র নিন্দাসহ ঘৃণা প্রকাশ করছে। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, ১৪ অক্টোবর (শুক্রবার) সকাল ৮ টার দিকে কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের পূর্ব পাশে ইসলামী ব্যাংকের পশ্চিম পার্শ্বে হাজী মেহের আলীর দোকানে একদল দুবৃর্ত্তরা হানা দেয়। এ সময় বিএনপি নেতা রিদুওয়ানুল হকের নেতৃত্বে ভাড়াটে উত্তেজিত লোকজন মেহের আলীর দোকান ঘরটি গুড়িয়ে ফেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জায়গাটি পেকুয়ার প্রখ্যাত জমিদার বাড়ীর রেকর্ডীয় সম্পত্তি। দলিল দস্তাবেজ ও আদালতে দায়েরকৃত অপর মোকদ্দমা ২০৫৫/২১ এর আর্জিমতে দেখা গেছে কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের পূর্ব পার্শ্বে হাজী মেহের আলীর ০৫.৬৬ শতক জায়গা আছে। পৃথক ৩ টি দলিলমূলে হাজী মেহের আলী ০৫.৬৬ শতক জায়গা ক্রয় করেন। ১৮৫১ কবলামুলে ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর ২.৩৩ শতক ১৩৫৮ নং কবলামুলে একই বছরের ৯ সেপ্টেম্বর ২.৩৩ ও ২৮৯১ কবলামুলে ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর ১ শতকসহ সর্বমোট ০৫.৬৬ শতক জায়গার মালিক। খরিদসুত্রে প্রাপ্ত জায়গায় পৃথক দুটি নামজারী খতিয়ান হাজী মেহের আলীর নামে সৃজিত আছে। যার নং ৭০৫৪ ও ৭৩৬২। এ দিকে কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের নিকটবর্তী জায়গাটিতে হাজী মেহের আলী তার মালিকানাধীন জায়গাটি বছর খানেক পূর্বে মাটি ভরাট করে সেখানে ঘরভিটা তৈরী করে। জায়গাটি গর্ত ও ডোবা পুকুর ছিল। সেটি কয়েক লক্ষ টাকার মাটি ভরাট করে উপযোগী করা হয়। সেখানে তৈরী করেন দোকান। টিনের ছাল ও বাঁশের বেড়া দিয়ে সেখানে দোকান ঘর করা ছিল। ঘটনার দিন সকালে একদল দুবৃর্ত্তরা সেখানে গিয়ে ভাংচুরসহ তান্ডব চালায়। হাজী মেহের আলী জানান, রিদুয়ানুল হক একজন ভূমিদস্যু। বিএনপি সরকারের সময় মগনামা, উজানটিয়া ও পেকুয়ায় তার অত্যাচারে অনেক মানুষ ভিটা, জমি হারিয়েছেন। পেকুয়ারচর থেকে অনেক মানুষ তার জুলুম ও দখলের কারণে উচ্ছেদ হয়েছে। রিদুওয়ান মাস্টার বিএনপির পেকুয়ার প্রভাবশালী নেতা। এমনকি নীতি নির্ধারণী পর্যায়ের শক্তিশালী নেতা তিনি। আ’লীগ সরকারের আমলেও এখন দখল ও জবর দখলে মেতেছে। আমার জায়গাটি ভাড়াটে নিয়ে দখল করার প্রচেষ্টা করছে। আমি তার কাছে অসহায় হয়ে গিয়েছি। আমাদের দল থেকেও কিছু ভাড়াটে হিসেবে গেছে রিদুওয়ান মাস্টারের টাকায়। বিএনপির ২০/৩০ জন লাঠিয়াল ও আ’লীগেরও কিছুসহ আমার জায়গায় গিয়ে অপতৎপরতায় লিপ্ত হয়েছে। পেকুয়া থানার এস,আই খাইর উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে আমি সেখানে গিয়েছি। থানায় অভিযোগ দিয়েছে। বিষয়টি আমরা গুরুত্বের সাথে দেখছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2022
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com